আজ সোমবার, ৩০ নভেম্বর, ২০২০ || ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ সোমবার, ০৭:৫৪ পূর্বাহ্ন
সোমবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯   |   sonalisandwip.com
.

বাংলাদেশ জমিয়তুল উলামার চেয়ারম্যান ও শোলাকিয়ার খতিব ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ একাত্তরে জামায়াতে ইসলামীর যুদ্ধাপরাধ ও নৃশংস হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে নিজেদের ভুল ভাঙাকে একটি শুভ লক্ষণ হিসেবে আখ্যায়িত করে বলেছেন, ‘জামায়াতের সব সদস্যদেরই আব্দুর রাজ্জাকের মতো ভুল ভাঙা উচিত। ’ রবিবার এক বিবৃতিতে তিনি এ কথা বলেন।

জামায়াত থেকে পদত্যাগ করায় কেন্দ্রীয় সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল ও আইনজীবী আব্দুর রাজ্জাককে অভিনন্দন জানিয়ে ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ বলেন, ‘পাকিস্তানি হায়েনাদের কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে জামায়াত কর্মীরা এ দেশের মানুষের ওপরে নৃশংসভাবে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল একাত্তরে। দেরিতে হলেও নিজের ও দলের ভুল বুঝতে পারায় আমরা তাকে অভিনন্দন জানাই। কেবল একাত্তরের নৃশংসতা নয়, ধর্মীয় বিষয়ে জামায়াতের যে অপপ্রচার আছে, নবী রাসুলদের নিয়ে অপব্যাখ্যা আছে, সবকিছুর বিরুদ্ধে তাদের মুখ খুলতে হবে। ’

ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ আরও বলেন, ‘সাহাবায়ে কেরাম ও নবী-রাসুলদের বিরুদ্ধে মওদুদী ও জামায়াতে ইসলামীর লেখকরা সবচেয়ে বেশি সমালোচনা করেছেন। সাহাবায়ে কেরাম সমালোচনার ঊর্ধ্বে। নবী-রাসুলদের সমালোচনা করার তো প্রশ্নই ওঠে না। আল্লাহর কাছে তারা নির্বাচিত। জামায়াতকে ধর্মীয় বিষয়েও জাতির কাছে ক্ষমা চেয়ে সুপথে ফিরে আসতে হবে।’

বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘যুদ্ধকালীন জামায়াতের ভূমিকা সম্পর্কে দায়দায়িত্ব গ্রহণ করে ক্ষমা চাওয়ার যে পরামর্শ দিয়েছেন আইনজীবী আব্দুর রাজ্জাক, তা অত্যন্ত সময়োচিত প্রস্তাব। জামায়াত সবসময় ভুলপথে ছিল। মুক্তিযুদ্ধে দেশের বিরুদ্ধে তাদের অবস্থান থাকলেও সেই চিন্তাধারার আলোকেই তারা এ দেশে রাজনীতি করছে।’

জামায়াতের তরুণ কর্মীদের উদ্দেশ করে মাসঊদ বলেন, ‘যার শরীরে এই বাংলাদেশের রক্ত। সে কীভাবে দেশ ও মুক্তিযুদ্ধবিরোধী একটি সংগঠনে থাকে? আপনারা ফিরে আসুন, সত্য ও সুন্দরের পথে। তরুণদের শক্তিকে বাংলাদেশ গড়ার পেছনে ব্যয় করতে হবে।’